খুলছে অফিস, হন্যে হয়ে ঢাকায় ছুটছে মানুষ

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে সতর্কতা হিসেবে সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটি আর বাড়ছে না। এমন অবস্থায় ৩১ মে থেকে ১৫ জুন পর্যন্ত নির্দিষ্ট কিছু স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে অফিস খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। ওই দিন থেকে সীমিত পরিসরে চলবে গণপরিবহনও।

বুধবার সরকারের পক্ষ থেকে এমন ঘোষণা দেওয়া পর থেকেই হন্যে হয়ে ঢাকায় ছুটছে মানুষ। যেহেতু ৩১ মে এর আগে গণপরিবহন চালু হচ্ছে না তাই আপাতত ভেঙে ভেঙে সবাই গন্তব্যের দিকে ছুটছেন।

অন্যদিকে করোনার ঝুঁকি নিয়েই কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌ-রুট হয়ে ঢাকায় ফিরছেন দক্ষিণাঞ্চলের মানুষ। লঞ্চ ও স্পিডবোট বন্ধ থাকায় ফেরিতে করেই পদ্মা পাড়ি দিচ্ছেন তারা। ভোরের আলো ফুটতে না ফুটতেই নৌরুটে ভিড় করেছেন হাজারো মানুষ। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে নৌরুটটি লোকে লোকারণ্য হয়ে যায়।

এমন অবস্থায় মানা হচ্ছে না কোনো সামাজিক দূরত্ব; মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধিও। অনেকের মুখে নেই মাস্ক। ফেরিতে নেই করোনা সংক্রমণের নিয়ম মানার বালাই।

ঢাকাগামী মানুষজন বলছেন, ৩১ মে থেকে অফিস খুলছে তাই ঢাকায় যাচ্ছি। অফিস না করে তো মাসের পর মাস মালিক পক্ষ আমাদের বেতন দিবে না। আর বেতন না দিলে আমরা চলবো কিভাবে। তাই ঝুঁকি নিয়েই ঢাকায় যাচ্ছি।

বিশ্লেষকরা বলছেন, করোনাভাইরাস কত দিন থাকবে এর সঠিক সময় কারোই জানা নেই। এভাবে বসে থাকলে মানুষজন না খেয়ে মরবে। তাই অর্থনীতি সচল রাখার জন্য ধীরে ধীরে সব কিছু খুলে দেওয়া ছাড়া অন্য কোন উপায় নেই। তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনেই সবকিছু করতে হবে বলে জানান তারা।

দিকদিগন্ত/জেআই

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*