ট্রাম্পকে ভোট দেওয়ার জন্য ভোটারদের হুমকি দিচ্ছে ইরান!

মার্কিন নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ভোট দেওয়ার জন্য বিরোধী ডেমোক্র্যাট প্রার্থীর সমর্থক ভোটারদের কাছে হুমকি দিয়ে ইরান ইমেইল পাঠাচ্ছে বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তা কর্মকর্তারা। আমেরিকার জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থার পরিচালক জন র‍্যাটক্লিফ বলেন, ইমেইলগুলো কট্টরপন্থী ট্রাম্প সমর্থক একটি গ্রুপের কাছ থেকে পাঠানো হয়েছে বলে দেখানো হয়েছে। ‘অস্থিরতা উস্কে দেওয়ার’ উদ্দেশ্যেই ওই ইমেইলগুলো পাঠানো হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

র‍্যাটক্লিফ জানান, ‘ইরান ও রাশিয়া ভোটারদের কিছু তথ্য’ হাতে পেয়েছে বলে মার্কিন কর্মকর্তারা জানতে পেরেছে। গোয়েন্দা সংস্থার কাছ থেকে এই ঘোষণা এলো প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ১৩ দিন আগে।

র‍্যাটক্লিফ বলেন, ইরান যে ‘স্পুফ ইমেইলগুলো’ পাঠিয়েছে, সেগুলো ট্রাম্পের কট্টরপন্থী সমর্থক গ্রুপ ‘প্রাউড বয়েজ’ এর নাম ব্যবহার করে ভোটারদের ‘ভয় দেখাতে, বিশৃঙ্খলা উস্কে দিতে এবং প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সুনাম ক্ষুণ্ণ’ করতে পাঠানো হয়েছে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, ইমেইলগুলো একাধিক রাজ্যের ডেমোক্র্যাট ভোটারদের কাছে পাঠানো হয়েছে। সেসব মেইলে তাদের ট্রাম্পকে ভোট দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে।

মেইলে হুমকি দেওয়া হয়েছে, “আপনি ভোটের দিন ট্রাম্পকে ভোট দেবেন, অন্যথায় আমরা আপনাকে খুঁজে বের করব। আপনার সমর্থন পরিবর্তন করে রিপাবলিকানদের সমর্থন করুন যেন আমরা জানতে পারি যে আপনি আমাদের মেসেজ পেয়েছেন।”

এ ছাড়া ভোটারদের তথ্য ব্যবহার করে ‘নিবন্ধিত ভোটারদের কাছে ভুয়া তথ্য’ ছড়ানো হতে পারে, যা ‘বিভ্রান্তি, বিশৃঙ্খলা ছড়ানো এবং আমেরিকান গণতন্ত্রের প্রতি বিশ্বাস হ্রাস’ করানোর প্রচেষ্টা করা হতে পারে বলে সন্দেহ প্রকাশ করেন র‍্যাটক্লিফ।

আমেরিকার জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থার পরিচালক জানান, ইরানের পাশাপাশি রাশিয়ার কাছেও কিছু ভোটারের তথ্য আছে। তবে ইরানের মতো রাশিয়া একই ধরনের কাজ করেনি।

ভোটারদের তথ্য কীভাবে ফাঁস হচ্ছে অথবা রাশিয়ার কর্মকর্তারা ওই তথ্য নিয়ে কী করছে – সে বিষয়ে গোয়েন্দা কর্মকর্তারা বিস্তারিত জানাননি। তবে ইরান এখন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের সিস্টেম সফলভাবে হ্যাক করতে পারেনি বলে জানান তারা।

উল্লেখ্য, গতকাল বুধবার পর্যন্ত ৪ কোটি মার্কিন নাগরিক এরই মধ্যে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে আগাম ভোট দিয়েছেন।

দিকদিগন্ত/পিআই

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*